Advertise top
বিদেশ

হারদিপ সিং হত্যার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত

বরিশাল বিদেশ ডেস্ক

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৮:০৯ পিএম

হারদিপ সিং হত্যার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত

 

শিখ নেতা হারদিপ সিং নিজ্জার হত্যার পেছনে ভারত সরকারের হাত থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। মঙ্গলবার তার এই দাবি দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত। এমনকি এই অভিযোগটি ‘অযৌক্তিক এবং উদ্দেশ্যমূলক’ বলেও মন্তব্য করেছে দিল্লি।

 

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো সোমবার অটোয়ার হাউস অব কমন্সে বলেছিলেন, নিরাপত্তা সংস্থাগুলো জুন মাসে কানাডার মাটিতে হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে ভারত সরকারের এজেন্টদের ওতপ্রোতভাবে জড়িত থাকার অভিযোগ গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করেছে।

 

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার বলেছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কানাডায় সহিংসতায় জড়িত থাকার ট্রুডোর অভিযোগ ‘সম্পূর্ণ প্রত্যাখ্যান’ করেছেন।

 

ঘটনার পর একে অপরের দেশ থেকে কূটনীতিকদের চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। শুরুতে কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলি তার দেশ থেকে ভারতের শীর্ষ গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে চলে যেতে বলার পর কানাডিয়ান কূটনীতিককে পাঁচ দিনের মধ্যে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলেছে, ‘এই সিদ্ধান্তটি আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কানাডিয়ান কূটনীতিকদের হস্তক্ষেপ এবং ভারত বিরোধী কার্যকলাপে তাদের জড়িত থাকার বিষয়ে ভারত সরকারের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগকে প্রতিফলিত করে।’

 

শিখদের জন্য স্বাধীন খালিস্তান প্রতিষ্ঠার দাবিতে আন্দোলনকারীদের নেতৃত্বে ছিলেন নিজ্জার। তিনি ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশে একটি শিখ মন্দিরের বাইরে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।

 

কানাডায় শিখ আন্দোলন দীর্ঘদিন ধরে দুই সরকারের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভারতের বিবৃতি অনুসারে, নয়াদিল্লিতে সাম্প্রতিক জি২০ শীর্ষ সম্মেলনে মোদি ট্রুডোর কাছে দৃঢ় উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘তারা (শিখরা) বিচ্ছিন্নতাবাদকে প্রচার করছে এবং ভারতীয় কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উস্কে দিচ্ছে, কূটনৈতিক চত্বরের ক্ষতি করছে এবং কানাডায় ভারতীয় সম্প্রদায় ও তাদের উপাসনালয়কে হুমকি দিচ্ছে।’

 

এদিকে, ট্রুডো সোমবার হাউস অব কমন্সে বলেছেন, তিনি জি২০-তে মোদির সঙ্গে ‘ব্যক্তিগতভাবে এবং সরাসরি’ নিজ্জারের শুটিংয়ের বিষয়টি উত্থাপন করেছেন। ট্রুডো বলেছেন, ‘কানাডার মাটিতে একজন কানাডিয়ান নাগরিককে হত্যার সঙ্গে বিদেশি সরকারের যেকোন সম্পৃক্ততা আমাদের সার্বভৌমত্বের একটি অগ্রহণযোগ্য লঙ্ঘন।’

 

মঙ্গলবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কানাডাকে তাদের মাটি থেকে পরিচালিত সমস্ত ভারত-বিরোধী উপাদানের বিরুদ্ধে দ্রুত এবং কার্যকর আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান পুনরুক্ত করেছে।


মন্তব্য লিখুন


সম্পাদক ও প্রকাশক: শাহীনা আজমীন ।। স্বত্ব © বরিশাল নিউজ ২০২৪

Developed By NextBarisal