সময়ের আগেই লঞ্চ ছাড়তে বাধ্য করা হলো

বরিশাল নিউজ।। ধারনক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাইয়ের কারনে বরিশাল নদী বন্দর থেকে নির্ধারিত সময়ের আগেই ঢাকাগামী তিনটি লঞ্চকে ঘাট ত্যাগ করতে বাধ্য করেছে প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত রবিবার সন্ধ্যা সাতটায় ঢাকাগামী তিনটি লঞ্চকে ঘাট ত্যাগ করতে বাধ্য করে।

৬৬ দিন পর গতকাল রবিবার বরিশাল নদী বন্দর থেকে রাজধানী ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার জন্য এমভি সুরভী-৯, এমভি সুন্দরবন-১১ ও অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চে সকাল থেকেই যাত্রী ওঠা শুরু হয়। বিকেলের মধ্যে প্রতিটি লঞ্চ যাত্রীতে টইটুম্বুর হয়। অনেক যাত্রীদেরই মুখে ছিলনা মাস্ক। প্রত্যেকটি লঞ্চে প্রবেশের মুখে হাতে জীবাননাশক স্প্রে এবং শরীরের তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা রাখা হলেও লঞ্চগুলোর ডেকে যাত্রীরা বসেছেন গাদাগাদি করে। লঞ্চ তিনটির প্রত্যেকটিতে সামনের ফাঁকা জায়গায়ও যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে এসময় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয় নৌ বন্দরে। এতে অতিরিক্ত যাত্রী তোলার বিষয়টি ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে প্রমানিত হওয়ায় আদালতের নির্দেশে সন্ধ্যা ৭টা থেকে সোয়া ৭টার মধ্যে ওই তিনটি লঞ্চকে ঢাকার উদ্দেশ্যে বরিশাল ঘাট ছাড়তে বাধ্য করা হয়।

বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার বলেন, লঞ্চের যাত্রীদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে ভ্রমনের বিষয়টি নিশ্চিত করার দায়িত্ব মালিকপক্ষের। তবে সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করা হলে আইন প্রয়োগের মাধ্যমে লঞ্চ মালিক এবং যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে বাধ্য করা হবে।
 

বরিশাল নিউজ/স্টাফ রিপোর্টার