রিক্সা মালিক-শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ বাসদের আটক ৬

ব্যাটারী চালিত রিক্সার লাইসেন্স প্রদানের দাবিতে মালিক-শ্রমিকদের মিছিল-বরিশাল নিউজ

বরিশালে সড়ক অবরোধকারী ব্যাটারী চালিত রিক্সা মালিক-শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার এসি) খারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহ সাত পুলিশ আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় অবরোধকারীদের নেতৃত্বদানকারী জেলা বাসদের আহবায়ক ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রিয় নেতা প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন ,সদস্য সচিব ও মেয়র প্রার্থী ডা. মনিষা চক্রবর্তীসহ ৬ জনকে পুলিশ আটক করেছে।
বিকল্প ব্যবস্থা না করে ব্যাটারী চালিত রিক্সা উচ্ছেদ বন্ধ এবং প্রয়োজনীয় নীতিমালা প্রদান করে ব্যাটারী চালিত রিক্সার লাইসেন্স প্রদানের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় নগরীর সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হলের সামনে ব্যাটারী চালিত রিক্সা শ্রমিক-মালিক সংগ্রাম কমিটির ব্যানারে খালী বাসন হাতে নিয়ে মানববন্ধন এবং ভুখা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলকারীরা নগর ভবনের সামনে গিয়ে সড়ক অবরোধ করে। অবরোধের ফলে নগর ভবনের সামনের গুরুত্বপূর্ন তিনটি সড়কে তীব্র যানজটের সৃস্টি হয়। পুলিশ তাদের বুঝিয়ে শুনিয়ে অবরোধ তুলে দেয়। এক পর্যায়ে তারা ফের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সামনে সড়ক অবরোধ করে। এতে আবারও যানজটের সৃস্টি হলে পুলিশ তাদের অবরোধ তুলে নেওয়ার অনুরোধ করে। কিন্তু অবরোধকারীরা পুলিশের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে উল্টো তাদের সাথে হাতাহাতি এবং ধাক্কা-ধাক্কিতে লিপ্ত হয়। এ সময় অবরোধকারীরা কামড়ে এবং আঁচড়ে মেট্রোপলিটনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (কোতয়ালী) শাহনাজ পারভীন, কোতয়ালী মডেল থানার ওসি শাহ্‌ মো. আওলাদ হোসেন,সেকেন্ড অফিসার সত্যরঞ্জন খাসকেল, এসআই নজরুল ইসলাম এবং শারমিন ও ইভা সহ ৪ নারী কনস্টেবল সহ পুলিশের মোট সাতজন আহত হন। পরে পুলিশ বেধড়ক লাঠিচার্জ করে অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
বরিশাল নিউজ/এমএম হাসান