পরিবার ও ঘর হচ্ছে আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান- পুলিশ কমিশনার

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ শাহাবুদ্দিন খানঁ বলেছেন, “একটি পরিবার ও ঘর হয়েছে আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । এখান থেকে যদি ছেলে-মেয়েদের সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারতাম, তাহলে সমাজ এত কলংতি হতো না। এক্ষেত্রে পরিবারের সদস্যদের সচেতন হওয়ার আহবান জানান তিনি।”

তিনি আরও বলেন,আমাদের যে পুলিশ মানুষের স্বার্থে কাজ করে না। আমরা সেসকল পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবসস্থা গ্রহন করে থাকি। এছাড়া কোন পুলিশের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পেলে তাকেও ছাড় দেয়া হচ্ছে না। আমার মেট্রোপলিটন পুলিশ সদস্যরা নারী নির্যাতনে প্রতিরোধের ক্ষেত্রে একেবারে জিরো টলারেন্স হয়ে কাজ করছে এখানে সে যেই হোক পুলিশের পক্ষ থেকে একদম ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি আরো বলেন আমরা সকলেই মিলে যদি কাজ করি তাহলে যেকোন অপরাধ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব ,কোন অপরাধীকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেব না।

জনতা-পুলিশ একসাথে মিলে মিশে কাজ করতে পারি তাহলে সুন্দরভাবে বাংলাদেশটাকে গড়ে তোলা সম্ভব হবে বলেন বলেন তিনি।

দেশব্যাপী নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ  উপলক্ষে শনিবার ১৭ই অক্টোবর বরিশালে অনুষ্ঠিত হয় এই সমাবেশ। বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতোয়ালী মাডেল থানার আয়োজনে সকাল ১১টায় অশ্বিনী কুমার হলে এই সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

দেশব্যাপী নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ
দেশব্যাপী নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ

শাহাবুদ্দিন খান আরো বলেন বরিশালে ১শত ৯৭টি বিটে পুলিশি কার্যক্রম গতিশীল করার জন্য এই ধরনের কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে।

একই সাথে প্রতিটি থানায় নারীদের জন্য ভিন্নভাবে ডেক্স করা হয়েছে সেখানে নারী পুলিশ অফিসারদের কাছে আপনাদের অভিযোগ বলার পাশাপাশি আপনারা সকলেই পুলিশের ৯৯৯ নম্বরে কল করে অভিযোগ জানাবার জন্য সকলের প্রতি আহবান করেন।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর হোসাইন, বরিশাল সরকারী বিএম কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর ড., মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, এস এম ইকবাল,বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ক্যামিলিয়া খান, বরিশাল মহানগর ইমাম সমিতি সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সামসুল আলম, নারী নেত্রী ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর (বিসিসি) কহিনুর বেগম প্রমুখ।

এআইজি সহেলী

পুলিশ আপনার সাথে আছে- এআইজি সহেলী

কমিউনিটি ও বিট পুলিশিং শাখার এআইজি সহেলী ফেরদৌস বলেছেন,“ নারীর পাশে আমরা অর্থাৎ পুলিশ আছি। নিজেকে কখনো মনে মনে দুর্বল ভাববেন না। সবাই মিলে সোচ্চার হোন। সবাই মিলে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিকার, প্রতিরোধ গড়ে তুলবো।”

এসময় এআইজি আরো বলেন,  “ যে কোনো জায়গায়, যে কোনো ঘটনা আপনারা শুনতে পান, দেখতে পান অথবা জানতে পারেন তাহলে সাথে সাথে আমাদের জানাবেন। যদি থানা পর্যন্ত যেতে না চান বা যেতে না পারেন তাহলে আপনার বিট অফিসারকে মোবাইলে ফোন দিয়ে জানান আপনার সমস্যার কথা। বাংলাদেশ পুলিশ আপনার সাথে থাকবে। বিটের মাধ্যমে এলাকাগুলোকে ছোট ছোট ভাগ করার কারণ যাতে আমাদের অফিসার আপনাদের কাছে যেতে পারে। আর বিট অফিসারের নাম্বারও আপনারা রাখবেন ।”

অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন কোতয়ালী মডেল থানা ইনচার্জ অফিসার (ওসি) নুরুল ইসলাম।

বরিশাল নিউজ/ স্টাফ রির্পোটার