ঢাকার কাউন্সিলর ইরফান সেলিমকে ১ বছরের কারাদণ্ড

বাংলাদেশে নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনার জের ধরে কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষীকে এক বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত ।

ইরফান সেলিম ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছেলে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৩০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর।

এরআগে তার পুরনো ঢাকার বাড়িতে প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে অভিযানের পর র‍্যাবের মুখপাত্র লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ্ জানিয়েছেন, অবৈধ ওয়াকিটকি এবং বিদেশি মদ উদ্ধার হওয়ায় ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মো. জাহিদকে আটক করা হয় এবং র‍্যাবের সাথে থাকা আদালত দু’জনকে এক বছর করে কারাদণ্ড দেয়।

এই অভিযানে দু’টি অবৈধ অস্ত্র, গুলি, হাতকড়া এবং বাড়ির পাশে একটি টর্চার সেলও পাওয়া গেছে বলে র‍্যাব জানিয়েছে।

মারধরের শিকার নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান সোমবার সকালে ধানমন্ডি থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

ধানমন্ডি থানার তদন্ত কর্মকর্তা আশফাক রাজীব হাসান বলছেন, মামলার এজাহারে আসামীদের বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে পথরোধ করে সরকারি কর্মকর্তাকে মারধর, জখম ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

আসামীদের মধ্যে ইরফান সেলিম ছাড়াও এবি সিদ্দিক দিপু, মোহাম্মদ জাহিদ এবং গাড়ি চালক মিজানুর রহমানের নাম উল্লেখ করা আছে। এছাড়া ২/৩ জন অজ্ঞাতনামা আসামীর কথাও বলা আছে।

নৌবাহিনী ওই কর্মকর্তা স্ত্রীসহ মোটরসাইকেলযোগে ফিরছিলেন। এসময় একটি গাড়ির সঙ্গে মোটরসাইকেলটির ধাক্কা লাগার পর গাড়িটি থেকে অভিযুক্তরা নেমে এসে ওই কর্মকর্তাকে মারধর করেন।

এমনকি তিনি নিজের পরিচয় দেয়ার পরও অভিযুক্তরা মারধর অব্যহত রেখেছে বলে খবরে উল্লেখ করা হয়।

গাড়িটিতে সংসদ সদস্যের স্টিকার লাগানো ছিল ।

বরিশাল নিউজ/ ডেস্ক নিউজ