উপকূলে ‘আসানি’প্রস্তুতি

ঘূর্ণিঝড় ‘আসানি নিয়ে শংকায় রয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলবাসী। আগামী ২/১ দিনের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে প্রথমে লঘুচাপ অতঃপর গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে আসানি।

গতিমুখ অনুযায়ী উপকূলের দিকে এগিয়ে আসলে আঘাত হানতে পারে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলে।

বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় ‘আসানি’ মোকাবেলায় বরিশাল বিভাগের ৪ হাজার ৯১৫টি আশ্রয়ন কেন্দ্র প্রস্তত করা হয়েছে। এসব আশ্রয়ন কেন্দ্রগুলোতে ২০ লাখ মানুষের পাশাপাশি কয়েক লাখ গবাদী পশুকেও স্থান দেওয়া যাবে। আশ্রয়ন কেন্দ্রে বিশুদ্ধ পানি, শুকনা খাবার ও বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এনিয়ে ইতোমধ্যে জেলা পর্যায়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বছরের মে মাসেই ঘটে এ ধরনের ঝড়। ২০০৯ সালের ২৫ মে ধেয়ে এসেছিলো প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘আইলা’। যার বীভৎসতায় ধ্বংসযজ্ঞে পরিণত হয়েছিল সুন্দরবন। ২০২০ সালে এ অঞ্চলে পুনরায় আছড়ে পড়েছিলো ‘আমফান’। সেটাও ছিলো মে মাস। ২০২১ সালের ২৬ মে হাজির হয়েছিল ‘ইয়াস’। এবার সেই মে মাসেই আসছে ‘আসানি’।

বরিশালের জেলা প্রশাসক মোঃ জসীম উদ্দিন হায়দার বলেন, ত্রাণ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার সাথে যারা জড়িত এবং ইউএনও, বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে ৭ মে প্রস্তুতি সভা করা হয়েছে। শুকনো খাবার ও সাইক্লোন সেল্টারগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সিপিপি ভলান্টিয়ারদেরকেও প্রস্তুত করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, উপকূলীয় এলাকাকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে আমরা কাজ করছি।

বরিশালনিউজ/ স্টাফ রিপোর্টার

=========================================