স্বজন না পেয়ে দাফন করলো পুলিশ

বরিশাল নিউজ ॥ বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে করোনার উপসর্গ নিয়ে লিটন নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়। বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়া ইউনিয়নের লালকুঞ্জ এলাকার ওই যুবকের বয়স আনুমানিক ৩২। কিন্তু মৃত্যুর পর তার মরদেহ বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য কোনো আত্মীয়-স্বজনকে পাওয়া যায়নি। পরে কোতয়ালী মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা সেই মরদেহের দায়িত্ব বুঝে নিয়ে নগরীর রুপাতলীতে জানাজা ও দাফন সম্পাদন করেন।

সোমবার রাতে যুবকের মরদেহের জানাজা ও দাফন শেষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরেন বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালী মডেল থানার কর্মরত পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আরাফাত হাসান।

জানা যায়, করোনার উপসর্গ গোপন করে – শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হন ওই যুবক। উপসর্গ নজরে আসলে আইসোলেশনে নেওয়া হয় তাকে। পরে সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়। ওই যুবক হাসপাতালে ভর্তির সময় যে মোবাইল নাম্বার দিয়েছিলেন সেটি উলানিয়ার লালকুজ্ঞ এলাকার এক ব্যক্তির। ওই ব্যক্তি জানান, মৃত লিটন বেদে সম্প্রদায়ের মানুষ। ফলে তার আত্মীয় স্বজনকে পাওয়া দুরুহ।

আরো পড়ুন: বানারীপাড়ায় কাওসার হত্যায় ছাত্রলীগ নেতাসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পরবর্তীতে বিএমপি কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খানের নির্দেশনায় ও কোতয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে এসআই আরাফাত হাসান ও মিজানুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে জানাজা শেষে দাফন কাজ সম্পাদন করেন।

এদিকে নমুনা পরীক্ষায় মৃত ওই যুবকের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি বলে নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন।

বরিশাল নিউজ/স্টাফ রিপোর্টার