লকডাউনের ১ম দিনে

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সাতদিনের কঠোর লকডাউনের প্রথমদিনে বৃহস্পতিবার,১ জুলাই নগরীতে কোথাও কঠোরতা আবার কোথাও ঢিলেঢালা অবস্থা দেখা গেছে ।

পুলিশের অবস্থাও ছিলো সেরকম।  এক সড়কে পুলিশ দেখা গেলেও অন্য সড়কে তাদের দেখা নেই।

বরিশাল নগরীর সদর রোড, কাকলীর মোড়, সাগরদী পোলসহ কয়েকটি এলাকা  ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। এছাড়াও নগরীর কয়েকটি স্থানে দেখা গেছে আটোরিক্সা, মাহিন্দা, রিক্সায় যাত্রী বহন করা হচ্ছে।

সাগরদী পোল এলাকায় সড়কে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে প্রাইভেটকার, সিএনজিকে কোনো জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়তে হয়নি তাদের। মানুষের আনা গোনাও ছিলো সেখানে। কঠোর লকডাউনের মধ্যেও সেখানে দেওয়া হয়েছে ১০ কেজি চাল।

পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করছি। কেউ যৌক্তিক কারণে বের হলে আমরা যেতে দিচ্ছি। আমরা গাড়িগুলো থামিয়ে যাচাই-বাছাই করছি।

সড়কে গাড়ি বা সিএনজি নিয়ে বের হওয়া অধিকাংশ মানুষই যাওয়ার হাসপাতালের  কারণ দেখিয়েছেন।

বরিশালের উজিরপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট জয়দেব চক্রবর্তী। দিনব্যাপী এ কার্যক্রমে স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক মাক্স বিতরণ করা হয়।

৫৬ জন‌কে জ‌রিমানা

 ‘ক‌ঠোর লকডাউন’ বাস্তবায়‌নে এবং গণস‌চেতনতা সৃ‌ষ্টির লক্ষ্যে ব‌রিশাল জেলায় ২০টি ভ্রাম্যমাণ আদালত প‌রিচালনা করা হয়।

এ সময় ৫৬ জন‌কে ৩৭ হাজার টাকা জ‌রিমানা ক‌রে‌ছেন জেলা প্রশাস‌নের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এর ম‌ধ্যে ব‌রিশাল মহানগরী‌তে ৩৪ ব্যক্তি‌কে ১৯ হাজার ১০০ টাকা জ‌রিমানা করা হয়। এছাড়া ব‌রিশা‌লের ১০ উপ‌জেলায় ২২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান‌কে ১৭ হাজার ৯০০ টাকা জ‌রিমানা করা হয়।

বরিশাল নিউজ/ ডেস্ক নিউজ