গৌরনদী-কালকিনি সীমান্তে খেয়া চলাচল সীমিত

বরিশাল নিউজ।। বিদেশফেরত প্রবাসীদের অবাধ যাতায়াত ও শিবচরে সতর্ক অবস্থার কারণে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার সাথে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার নৌ-পথে যোগাযোগ সীমিত করা হয়েছে। পাশাপাশি সড়ক ও নৌ-পথে প্রশাসনিক নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

 এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গৌরনদীর পালরদী নদীর অপরপ্রান্তে মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার অবস্থান। ওই উপজেলার বহু পরিবারের গৃহকর্তাসহ সদস্যরা প্রবাসে থাকেন, এমনকি ইটালিপাড়া নামে একটি জায়গার নামও মানুষের মুখে মুখে প্রচলিত রয়েছে। তবে এসব জায়গার মানুষের বেশিরভাগ কাজ বরিশালের গৌরনদী উপজেলা সদর কেন্দ্রিক।

 প্রবাসে করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করার পর গত কয়েকদিনে বৃহত্তর মাদারীপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রবাসীরা নিজ নিজ গ্রামে ফিরে আসেন। যারা অনেকেই হোম কোয়ারেন্টিনে না থেকে পালরদী নদীর খেয়া নৌকা পারাপার হয়েই অবাধে গৌরনদী উপজেলার ঘুরে বেড়াচ্ছেন। যে কারণে গৌরনদীবাসীর মধ্যে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। একারণেই পালরদী নদীর ১২টি খেয়া নৌকা চলাচল সীমিত করে দেয়া হয়েছে।

 গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান জানান, খেয়া চলাচল সীমিত করার পাশাপাশি, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ সদস্যরা নজরদারি বাড়িয়েছেন।

 গৌরনদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুর রব হাওলাদার জানান, কোন কিছুই বন্ধ করে দেয়া হয়নি, শুধু প্রবাসীদের অবাধ ঘোরাফেরা রোধে পালরদী নদীতে অর্থাৎ গৌরনদী ও কালকিনি উপজেলার সীমান্তবর্তী নদীর ১২টি খেয়ার চলাচল সীমিত করা হয়েছে। পাশাপাশি সড়ক ও নৌপথে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

 বরিশাল নিউজ/ডেস্ক