ঘূর্ণিঝড় আম্পান: ভোলায় ফসল ঘরে তোলার নির্দেশ




 ভোল নিউজ।।  ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এর সম্ভাব্য ক্ষতি এড়াতে দ্রুত জমির পাকা ধানসহ সব ধরনের পাকা ফসল ঘরে তোলার জন্য কৃষকদের নির্দেশ দিয়েছে কৃষি বিভাগ। ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন এলাকায় ধান কাটা শুরু করেছেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগের এই নির্দেশ শনিবার ,১৬ মে থেকে বিভিন্ন উপজেলায় প্রচার করা হচ্ছে।

 ভোলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ হরলাম মধু জানান,  বর্তমানে কৃষকের বিস্তীর্ণ ফসলের ক্ষেতে বোরো, চিনা বাদাম, মচির, মুগ, ফেল ডাল ও সয়াবিন রয়েছে। এবার ৩৮ হাজার ৭৮৮ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদ হয়েছে। যার মধ্যে এখন পর্যন্ত কাটা হয়েছে ৬৮ ভাগ। তিনি বলেন,”ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ফসল রক্ষায় আমরা কৃষকদের দ্রুত পাকা ফলন কেটে ফেলতে নির্দেশ দিয়েছি।”

 এবছর জেলায় চিনা বাদাম আবাদ হয়েছে- ১৪ হাজার ৪৫০ হেক্টর, এর মধ্যে কাটা হয়েছে ৪০ ভাগ; মরিচ আবাদ হয়েছে ১৮ হাজার ২২৫ হেক্টর, কাটা হয়েছে ২৫ ভাগ; মুগ আবাদ হয়েছে ৩৭ হাজার ৪১৫ হেক্টর, যার মধ্যে প্রায় ৫০ ভাগ কাটা হয়ে গেছে। এছাড়াও ফেলন ডাল ১০ হাজার ২০ হেক্টর ও সয়াবিন ৯ হাজার ৭৭৯ হেক্টরের মধ্যে বেশির ভাগ এখনো কাটা হয়নি। এসব পাকা ফলন দ্রুত কাটতে নির্দেশ দিয়েছে কৃষি বিভাগ।

 রবিবার,১৭ মে সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকায় ধানসহ অন্য ফসল কাটতে শুরু করেছেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগের নির্দেশ পেয়ে দ্রুত ফসল ঘরে তোলা শুরু করে দিয়েছেন তারা।
 বরিশাল নিউজ/ ভোলা