কারাগারে কয়েদীর আত্মহত্যা

বরিশাল নিউজ।। বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত কয়েদী কবির সিকদার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। কারাগারের বন্ধ থাকা ডিভিশন ভবনের রান্নাঘরের আড়ার সাথে শুক্রবার দুপুরে কয়েদী গামছা দিয়ে আত্মহত্যা করে।
কবির সিকদার (৪০) পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার জামিরতলা এলাকার দলিল উদ্দিনের ছেলে।

 বিষয়টি নিশ্চিত করে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বনিক জানান, ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত কয়েদী কবির সিকদার গত বছরের অক্টোবর মাসের ২ তারিখে ভোলা জেলা কারাগার থেকে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে আসে। অসুস্থ্য থাকার কারনে তিনি বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শে চিকিৎসাও নিচ্ছিলেন। পাশাপাশি জেলখানায় ঝাড়-দফায় কাজ করছিলেন।
কিন্তু শুক্রবার দুপুরে তাকে নির্ধারিত স্থানে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু হয়। একপর্যায়ে কারাগারের ভেতরেই বন্ধ থাকা ডিভিশন ভবনের রান্নাঘরের আড়ার সাথে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। এরপর তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জেল হাসপাতাল ও পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
সুপারি বলেন, ধারনা করা হচ্ছে কৌশলে কবির তার নির্ধারিত স্থান থেকে সরে গিয়ে দেয়াল টপকে বন্ধ থাকা ডিভিশন ভবন এলাকায় পৌছায়। তবে এ ঘটনায় কারো দায়িত্ব অবহেলার প্রমান পাওয়া গেলে তাও খতিয়ে দেখা হবে।
 বরিশাল নিউজ/শামীম