উপকূলকে রক্ষায় বাঁধের উচ্চতা ১৮ ফুট করার সমীক্ষা চলছে -পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

বন্যা ও জলোচ্ছ্বাসসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে ভোলাসহ উপকূলীয় এলাকাকে রক্ষা করার জন্য বাঁধের উচ্চতা ১৮ ফুট করার প্রস্তাব রয়েছে বলেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম। এই উচ্চতা বাড়ানোর জন্য সমীক্ষা চলছে জানান তিনি।

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব:) জাহিদ ফারুক শামীম  শুক্রবার ভোলা সদেরর ইলিশাসহ দৌলতখান, বোরহানউদ্দিন, লালমোহন ও চরফ্যাসন উপজেলায় চলমান বাঁধনির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন ও নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা ঘুরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি আরো জানান, “ভোলা শহরকে রক্ষার জন্য ইলিশা এলাকার ৩৪০ কোটি টাকার ব্লক বাঁধের কাজ চলছে। এছাড়া শিবপুর এলাকায় আরও একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এসব চলমান প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে ভোলা সদরকে সুরক্ষিত করতে পারবো। আজ আমরা যে জায়গা পরিদর্শন করেছি সেখানে কিছু ভুলত্রুটি চিহ্নিত করা হয়েছে। যেগুলো সংশোধন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে প্রকৌশলীদের।”


ভোলায়  নদী ভাঙ্গণ এলাকা পরিদর্শন করছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী -বরিশাল নিউজ

পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বাঁধের উচ্চতা বাড়ানোর প্রসঙ্গে বলেন, উপকূলীয় এলাকাতে আগের বাধগুলো ৬০-৮০ এর দশকের নিয়মে তৈরি। তখন ৪ মিটার বা ১২ ফিট উচ্চতা ছিলো। এরপর আইলা, ফনি, বুলবুল, আম্পানের সময় আমরা দেখেছি জলোচ্ছাস হয়েছে তখন বাধের ওপর দিয়ে পানি যেতে দেখেছি। এখন প্রকল্পগুলো রিভাইজ করা হচ্ছে। বাঁধের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য সমীক্ষা চলছে, যা শেষ হলে উচ্চতা বাড়িয়ে ৬ মিটার অর্থাৎ ১৮ ফুট করা হবে। নতুন যেগুলো করা হচ্ছে সেগুলোর উচ্চতা বাড়ানো হচ্ছে, আগেরগুলো নিয়েও পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি মিডিয়ার সহযোগিতা কামনা করে বলেন, দয়া করে নেতিবাচক সংবাদ পরিবেশন না করে, জনগনকে ভয় না দেখিয়ে, ইতিবাচক সংবাদ পরিবেশন করবেন। এতে আমাদের জন্য কাজ করতে সুবিধা হবে এবং যারা রাত দিন কাজ করেন তারা উৎসাহিত হবেন, এ দায়িত্ব আপনাদের। আমাদের প্রকৌশলীরা পরিবার-পরিজন রেখে করোনার মধ্যেও রাত-দিন দাড়িয়ে থেকে কাজ করেছেন। আপনারা উৎসাহ না দিলে তারা কাজ করবে কিভাবে ।। এ দেশটা আমাদের বঙ্গব্ন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার যে লক্ষ্যে পৌছাতে হলে আমাদের যেরকম দরকার, আপনাদেরও সেরকম দরকার। আপনারা যতো ভালো সংবাদ পরিবেশন করবেন, ততোই প্রকৌশলীরা উৎসাহিত হবে। আমাদের সহযোগিতা করুন, সঠিক তথ্য দিন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল, ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুর রহমানসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডেও কর্মকর্তাবৃন্দ।

রিশাল নিউজ /ভোলা