আগৈলঝাড়ায় ২ সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুবার্ষিকী পালন

পিলখানায় নিহত কর্ণেল এবিএম জাহিদ হোসেন চপলের কবরের পাশে স্বজনরা-বরিশাল নিউজ

বরিশাল নিউজ।। ঢাকায় পিলখানায় ২০০৯ সালে বিদ্রোহের নামে সেনাবাহিনীর ৫৭ জন চৌকস অফিসারকে হত্যা করা হয়। যাদের মধ্যে ছিলেন আগৈলঝাড়ার সন্তান কর্ণেল এবিএম জাহিদ হোসেন চপল ও মেজর কাজী আশরাফ ।
বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার চাঁদত্রিশিরা ও বেলুহার গ্রামের বাড়িতে তাদের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকীতে দিনব্যাপী কোরআন খানি, কবর জিয়ারত, মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্ণেল জাহিদ ও আশরাফের আপনজনের সাথে আগৈলঝাড়ার জনসাধারণ তথা দেশবাসী তাদের স্মরণ করছে। জাহিদের স্ত্রী ছন্দা, ছেলে নিলয় ও নির্ঝর ঢাকার বাসায় দিবসটি পালন করেন। তার ভাই আ. রব বখতিয়ার সাংবাদিকদের জানান, নিজস্ব অর্থায়নে কর্ণেল জাহিদ হোসেন নুরানী হাফেজী মাদ্রাসা ও এতিমখানা নির্মাণ করা হয়েছে। এতিমখানাটিতে বর্তমানে ১৩জন এতিম শিশু রয়েছে।
অন্যদিকে পিলখানা ট্রাজেডির ৬দিন পর উদ্ধার হওয়া আগৈলঝাড়ার আর এক কৃতী সন্তান মেজর কাজী আশরাফ এর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে আশরাফের পরিবার চট্টগ্রামে অবস্থান করায় গ্রামের বাড়ি বেলুহার গ্রামে তার চাচারা দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করেন।
বরিশাল নিউজ/শামীম