Deprecated: Invalid characters passed for attempted conversion, these have been ignored in /home/barifjja/public_html/wp-content/themes/colormag/inc/enqueue-scripts.php on line 170

Deprecated: Invalid characters passed for attempted conversion, these have been ignored in /home/barifjja/public_html/wp-content/themes/colormag/inc/enqueue-scripts.php on line 170

Deprecated: Invalid characters passed for attempted conversion, these have been ignored in /home/barifjja/public_html/wp-content/themes/colormag/inc/enqueue-scripts.php on line 170

Deprecated: Invalid characters passed for attempted conversion, these have been ignored in /home/barifjja/public_html/wp-content/themes/colormag/inc/enqueue-scripts.php on line 170

Deprecated: Invalid characters passed for attempted conversion, these have been ignored in /home/barifjja/public_html/wp-content/themes/colormag/inc/enqueue-scripts.php on line 170
গায়ানাকে কোয়ালিফায়ারে তুললেন সাকিব | Barishalnews.com

গায়ানাকে কোয়ালিফায়ারে তুললেন সাকিব

সাকিব আল হাসান গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সে যোগ দেওয়ার পর টানা চার ম্যাচ জিতলো তারা। তার মধ্যে সাকিব দুই ম্যাচেই হলেন ম্যাচসেরা। আর গায়ানা পয়েন্ট টেবিলের তলানি থেকে নিশ্চিত করলো কোয়ালিফায়ার।

ছয় ম্যাচ শেষে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের জয় ছিল মাত্র একটিতে। হার ৪টিতে। ফল হয়নি একটিতে। মাত্র ৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে তারা ছিল তলানিতে। এরপর আট ম্যাচ শেষে তিন জয়ে তারা উঠে আসে পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চম স্থানে।

অবশ্য সপ্তম ও অষ্টম ম্যাচে সাকিব আল হাসান ব্যাট হাতে মারেন গোল্ডেন ডাক। তবে বল হাতে ৩০ রান দিয়ে ১টি ও পরের ম্যাচে ৩৩ রান দিয়ে ২টি উইকেট নেন।

আট ম্যাচ শেষে সমীকরণ এমন দাঁড়িয়েছিল যে, প্লে-অফে যেতে হলে শেষ দুই ম্যাচ জিততেই হবে সাকিব-তাহিরদের। প্রয়োজনের সময় জ্বলে উঠলেন সাকিব। নবম ম্যাচে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ২৫ বলে ৪টি চার ও ১ ছক্কায় করলেন ৩৫ রান। এরপর বল হাতে ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে নিলেন ৩ উইকেট। গায়ানা জয় পেল ৩৭ রানে। ত্রিনবাগোকে বিদায় করে উঠে গেল প্লে-অফে। সাকিব হন ম্যাচসেরা।

রবিবার রাতে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে বড় ব্যবধানে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্বাডোজ রয়্যালসের বিপক্ষের ম্যাচে বল হাতে সাকিব ২.৩ ওভারে ১২ রান দিয়ে নিলেন ১ উইকেট। এছাড়া রোমারিও শেফার্ড ৩ ওভারে ১৪ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। কিমো পল ২ ওভারে ৯ রান দেয় ২টি ও ওডেন স্মিথ ৪ ওভারে ৪২ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। তাতে আগে ব্যাট করতে নামা বার্বাডোজ ১৭.৩ ওভারে অলআউট হয় ১২৫ রানে।

১২৬ রানের মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৮ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে বসে গায়ানা। এরপর মাঠে নামেন সাকিব। তিনি অধিনায়ক শিমরন হেটমায়ারকে সঙ্গে নিয়ে দলীয় সংগ্রহকে টেনে নেন ৯৭ রান পর্যন্ত। এরপর জয় থেকে ২৯ রান দূরে থাকতে মাত্র ৩০ বলে ৫টি চার ও ৩ ছক্কায় ৫৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন সাকিব। আর গায়ানা পেয়ে যায় জয়ের ভিত। শেষ পর্যন্ত ১৪.৩ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে গায়ানা। পাশাপাশি নিশ্চিত করে কোয়ালিফায়ার।

ব্যাট হাতে দলের প্রায় অর্ধেক রান করে এবং বল হাতে ১ উইকেট নিয়ে আবারও ম্যাচসেরা হন সাকিব।

বরিশালনিউজ/ ডেস্ক নিউজ