বরিশাল নিউজ ডেস্ক।। কুড়িগ্রামে উত্তরাঞ্চলের দ্বিতীয় বৃহত্তম সড়ক সেতু ‘শেখ হাসিনা ধরলা সেতু’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আসন্ন ঈদের শুভেচ্ছা হিসেবে সেতুটি উদ্বোধনের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। পরে সর্বসাধারণের চলাচলের জন্য তা উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।
কুড়িগ্রাম এলজিইডি’র তত্ত্বাবধানে সম্পূর্ণ দেশীয় অর্থ ও প্রযুক্তিতে এই গার্ডার সেতুটি নির্মিত হয়েছে। ১৯১ কোটি টাকা ব্যয়ে ৯৫০ মিটার দীর্ঘ সেতুটি উত্তারাঞ্চলের দ্বিতীয় বৃহত্তম সড়ক সেতু। এটি উত্তর ধরলার তিনটি ইউনিয়নসহ কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলার আর্থ সামাজিক উন্নয়নে বড় ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছে এলাকাবাসী। সেতুটির সুবিধা পাবে অন্তত ২০ লাখ মানুষ।
এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর সেতুটির নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন। এটি নির্মাণ করেছে সিমপ্লেক্স ও নাভানা কনস্ট্রাকশন গ্রুপ। ৯৫০ মিটার দীর্ঘ ও ৯ দশমিক ৮০ মিটার চওড়া সেতুটির ১৯টি স্প্যান ও ৯৫টি গার্ডার রয়েছে। দৈর্ঘ্যে বঙ্গবন্ধু সেতুর পর এই সেতুর অবস্থান বলে নির্মাণকারী সংস্থা এলজিইডি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
সেতু উদ্বোধনের আগে দেওয়া বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এক সময় কুড়িগ্রামসহ রংপুর এলাকা ছিল মঙ্গাপীড়িত এলাকা। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর মঙ্গা দূর হয়। পরে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে আবার মঙ্গা দেখা দেয়। পরবর্তীতে তাঁর সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ফলে এই অঞ্চলের মঙ্গা দূর হয়েছে। এই এলাকার মানুষ এখন অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির পথে।’