জুন ১২, ২০১৮

বাস ও মাহিন্দ্রা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ

বাসে যাত্রী উঠানোকে কেন্দ্র করে বরিশাল বাস শ্রমিক ও মাহিন্দ্রা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় গ্র্বপেরই ছয়জন শ্রমিক আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল্লাবাদের মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডের সামনে মঙ্গলবার বিকেল পৌনে ৩টার দিক এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নতুনবাজার বানারীপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে স্বর্না নামের একটি বাস নথুল্লাবাদের মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডের সামনে এসে থামে। এসময় সেখান থেকে কয়েকজন বানারীপাড়ার যাত্রী বাসে তোলা হলে ক্ষিপ্ত হয় মাহিন্দ্রা চালকরা। এসময় মাহিন্দ্রা চালক শামীম ও রুবেলের সাথে বাস চালক সোহাগের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে দুই গ্র্বপের মধ্যে হাতাহাতি হয় এবং তা পরে সংঘর্ষে রুপ নেয়। কয়েকদফা সংঘর্ষে ৫/৬টি মাহিন্দ্রা গাড়ি ভাংচুর করা হয় এবং বাস চালকরা রাজীব নামে এক মাহিন্দ্রা চালককে বেধড়ক মারধর করে। এই ঘটনায় মাহিন্দ্রা চালক শামীম, রুবেল, রাজীব ও বাস চালক সোহাগ গুরুত্বর আহত হয়। এছাড়া আরো দুইজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এই ঘটনার পরপরই বরিশাল থেকে আভ্যন্তরীণ ১৪টি রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় বাস শ্রমিকরা। সাথে সাথে মাহিন্দ্রা চালকরাও তাদের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং আশ্বাসের প্রেক্ষিতে দুই ঘন্টা পর বাস চলাচল স্বাভাবিক করা হয়।
বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্র্বপের সভাপতি আফতাব হোসেন বলেন, মাহিন্দ্রা শ্রমিকদের হামলায় আমার শ্রমিকরা ৰতিগ্রস্থহয়েছে। এই ঘটনার বিচার হবে। বরিশাল আলফা-মাহিন্দ্রা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি লিটন মোল্লা জানান, ঈদের সময় বাস চালকরা খাম খেয়ালী ভাবে বাস পরিচালনা করে।
বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (উত্তর) মো: রকিবুজ্জামান জানান, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দুই গ্র্বপের মধ্যে মারামারি হয়েছে। এসময় কয়েকটি মাহিন্দ্রা ভাংচুর করা হয়েছে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এখন বাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।
অন্যদিকে বাস চালকরা অভিযোগ করে বলেন, পুলিশের সাথে মাহিন্দ্রা শ্রমিকদের আলাদা সখ্যতা রয়েছে। রিকুজিশনে মাহিন্দ্রা মালিকদের কাছে মাহিন্দ্রা নেয় পুলিশ। এছাড়া মাহিন্দ্রা মালিকদের কাছ থেকে বাড়তি সুবিধাও নেয় পুলিশ। তাই থ্রি হুইলার মাহিন্দ্রা মহাসড়কে চলাচলের অনুমতি না থাকা সত্বেও পুলিশের অনুমতিতে তা চলছে নির্বিঘ্নে। তারাই যতই অপরাধ করুক পুলিশ কোনো সময়ই মাহিন্দ্রার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় না।
বরিশাল নিউজ/শামীম

Subscribe to the newsletter

Fames amet, amet elit nulla tellus, arcu.