এইচএসসি পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে জেলার গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার খালেদা নাছরিন এ তদন্ত কমিটি গঠণ করেন।
সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বিপুল কুমার নাগকে প্রধান করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সেলিম মিয়া ও গৌরনদী ওসি (তদন্ত) আফজাল হোসেনকে সদস্য করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়। আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন ইউএনওর কাছে দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
গৌরনদী গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিজানুর রহমান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এইচএসসি পরীক্ষার যুক্তিবিদ্যা প্রথমপত্র পরীক্ষার দিন (শনিবার) সরকারী গৌরনদী কলেজের ছাত্র ও কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক ছাত্রলীগ নেতা আরিফ মিয়ার পরিবর্তে পরীক্ষায় অন্য একজন প্রক্সি পরীক্ষা দিচ্ছে। এ খবর পাওয়ার পর যুক্তিবিদ্যা দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার দিন (৬ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গৌরনদী গালর্স স্কুল এ্যান্ড কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রের ১৩নং কক্ষে গিয়ে পরীক্ষার্থী আরিফ হোসেন মিয়ার স্থলে অন্য একজনকে পরীক্ষা দিতে দেখেন। এসময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রক্সিদাতাকে চ্যালেঞ্জ করলে সে পরীক্ষার খাতা রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পরীক্ষার খাতা জব্দ করে কেন্দ্র সচিব সরকারী গৌরনদী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাকে বুঝিয়ে দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।
বরিশাল নিউজ/শামীম