মে ৮, ২০১৮

পরকীয়ার পরে

প্রথম স্বামীর সংসার ছেড়ে পরকীয়া প্রেমিক জাহিদুর রহমান মৃধার সাথে সংসার বেঁধেছিলেন এক সন্তানের জননী নাদিয়া বেগম (২০)। পরকীয়া প্রেমিকের সাথে বছর খানেক সংসার করে অবশেষে সেই স্বামী জাহিদুরের নির্যাতনে সোমবার রাতে মৃত্যুর কাছে পরাজিত হয়েছে নাদিয়া।
গৌরনদী পৌর এলাকার গেরাকুল মহল্লায় এই ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ মঙ্গলবার সকালে উপজেলা হাসপাতাল থেকে নিহত নাদিয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।
নিহতের মা আলেয়া বেগম জানান, তার মাদক সেবী মেয়ে জামাতা জাহিদুর রহমান মৃধা প্রায়ই নাদিয়াকে মারধর করতো। সোমবার রাতেও নাদিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে। পরবর্তীতে নাদিয়ার লাশ হাসপাতালে রেখে আত্মহত্যার কথা রটিয়ে দেয়া হয়।
স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, সামাজিকভাবে নাদিয়া বেগমের প্রথম বিয়ে হয় পাশ্ববর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলায়। পরবর্তীতে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নাদিয়ার সাথে পরিচয় হয় জাহিদুর রহমান মৃধার। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সে সুবাধে বছরখানের পূর্বে এক পুত্র সন্তানের জননী নাদিয়া তার প্রথম স্বামীর সংসার ছেড়ে জাহিদুর রহমানের সাথে ঘর বাঁধেন।
গৌরনদী মডেল থানার এসআই মোঃ ইকবাল কবির বলেন, এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে থানায় ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রির্পোট না পাওয়ার পর্যন্ত মৃত্যুর মুলকারণ সম্পর্কে কিছুই বলা যাচ্ছেনা।
বরিশাল নিউজ/শামীম

Subscribe to the newsletter

Fames amet, amet elit nulla tellus, arcu.