এইচএসসি পরীক্ষায় রবিবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে পরীক্ষার কক্ষে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রবেশ করে এক শিক্ষার্থীকে চ্যালেঞ্জ করলে খাতা রেখে কৌশলে পালিয়ে যায় ওই ছাত্র। পরবর্তীতে জানা গেছে, পালিয়ে যাওয়া ওই ছাত্র পরীক্ষার প্রথম থেকেই এক ছাত্রলীগ নেতার পরিবর্তে প্রক্সি দিচ্ছিল। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার গৌরনদী গালর্স স্কুল এ্যান্ড কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে।
পরবর্তীতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ওই খাতাটি জব্দ করে কৰ পরিদর্শককে বুঝিয়ে দিলেও অভিযুক্ত পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেননি। পরীৰা কেন্দ্রের কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মিজানুর রহমান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন চলতি এইচএসসি পরীক্ষার যুক্তিবিদ্যা প্রথমপত্র পরীক্ষারদিন (শনিবার) সরকারী গৌরনদী কলেজের পরীক্ষার্থী, ছাত্র সংসদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক ও কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য আরিফ হোসেন মিয়ার পরিবর্তে অন্য একজন পরীক্ষা দিচ্ছে। এ খবর পাওয়ার পর যুক্তিবিদ্যা দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার দিন গৌরনদী গালর্স স্কুল এ্যান্ড কলেজের ১৩নং কক্ষে গিয়ে আরিফ হোসেন মিয়ার স্থলে অন্য একজনকে পরীক্ষা দিতে দেখা যায়। এসময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ওই ছাত্রকে চ্যালেঞ্জ করলে সে পরীক্ষার খাতা রেখে কৌশলে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খাতা জব্দ করে কক্ষ পরিদর্শককে বুঝিয়ে দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।
নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, কক্ষ পরিদর্শক, কেন্দ্রের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা ও পরীক্ষা হলের অন্যান্য পরীক্ষার্থীরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলেও সরকারী গৌরনদী কলেজের অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব অধ্যাপক আব্দুর রাজ্জাক প্রক্সি দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, অসাদুপায় অবলম্বনের জন্য ছাত্র সংসদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক আরিফ হোসেন মিয়ার খাতা জব্দ করা হয়েছে।
বরিশাল নিউজ/শামীম