মার্চ ১২, ২০১৮

দাবি পূরণ না হলে ১৮ মার্চ থেকে পানি বিদ্যুৎ বন্ধ

বকেয়া বেতন-ভাতাদি পরিশোধ করার জন্য ১৮ মার্চ সময় বেধে দিয়েছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) আন্দোলনরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তা না হলে বরিশাল নগরীর পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা কাজ, বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হবে বলে সোমবার সংবাদ সম্মেলন করে তারা ঘোষণা দেন।
তাদের দাবির মধ্যে রয়েছে বিগত ২২ মাসের পিএফ এর টাকা জমা , দৈনিক মজুরী ভিত্তিক শ্রমিকদের বকেয়া বেতন একসাথে পরিশোধ, ২০১৭ সালের ২ এপ্রিল তারিখের সমঝোতা সভার সিদ্বান্ত বাস্তবায়ন,দৈনিক মজুরী ভিত্তিক শ্রমিকদের বেতন সমন্বয়,প্রতিমাসের প্রথম সপ্তাহে বেতন পরিশোধ, সিটি কর্পোরেশনের বিধি বহির্ভূত সকল অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ করা সহ নয় দফা।

সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দিয়েছেন বিসিসির আন্দোলনরত বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদের নগর ভবন শাখার সাধারণ সম্পাদক দিপক লাল মৃধা ।
নগর ভবনের ৩য় তলার সভা কক্ষে সোমবার দুপুর একটায় এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা রাসেল খান,এ্যাসোসর কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন,মোঃ অহিদুল ইসলাম মুরাদ,একে এম হেলাল উদ্দিন,নুর খান,রেজাউল করীম,শানু জমাদ্দার ও জিয়া উদ্দিন সহ স্থায়ী ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীগন।
সংবাদ সম্মেলনে তারা আরো বলেন গত ২২দিন ধরে তারা সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কর্ম বিরতি পালনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ন আন্দোলন করেছেন।
আগামী বুধবার ১৪ই মার্চ থেকে পূর্র্ণ দিবস কর্ম বিরতি পালনের পাশাপাশি নগর ভবনের সকল শাখায় তালা ঝুলিয়ে দেয়া সহ পানি,বিদ্যুৎ নগর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা সেবা বন্ধ করে দেয়ার মত কঠোর সিদ্বান্ত নিতে তারা কোন পিছ পা হবেন না।

বিসিসির স্থায়ী ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতাদি সহ পিএফ ফান্ডের টাকার দাবিতে গত ১৮ই ফেব্রয়ারী থেকে কর্ম বিরতি পালন সহ লাগাতার আন্দোলন শুরু হয়।
বরিশাল নিউজ/এমএম হাসান

Subscribe to the newsletter

Fames amet, amet elit nulla tellus, arcu.