বরিশালে পুলিশের দায়ের করা বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের কেন্দ্রীয় নেতা ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের নেতাসহ সকল শ্রমিকের মুক্তির দাবিতে আন্দোলনরত নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের বাদানুবাদ-বরিশাল নিউজ

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমনসহ কারান্তরীন সকল শ্রমিক নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বরিশালে প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সমাবেশ এবং বিক্ষোভ মিছিলে বাঁধা দিয়েছে পুলিশ। পরে অবশ্য সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য মানববন্ধন করার অনুমতি দেয় তারা।
সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নেতাদের মুক্তির দাবিতে রবিবার সকালে নগরীর সদর রোডে ছাত্র সমাবেশ ও মিছিলের আয়োজন করে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। নেতাকর্মীরা সকাল সাড়ে ১০টায় কর্মসূচীতে অংশ নেওয়ার জন্য নগরীর ফকির বাড়ি রোডের বাসদ কার্যালয় থেকে বের হতে চাইলে তাদের বাঁধা দেয় পুলিশ। এ সময় পুলিশের সাথে তাদের বেশ কিছুক্ষণ বাদানুবাদ এবং ধাক্কাধাক্কি হয়।
ছাত্র ফ্রন্টের জেলা সভাপতি সন্তু মিত্রের সভাপতিত্বে বেলা ১১টায় সদর রোডে মানববন্ধন এবং সমাবেশ করে তারা । মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র উইনয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি জিলানী শুভ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রিয় সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি ইকবাল কবির, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান রিচার্ড এবং সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রিয় দপ্তর সম্পাদক রাশেদ শাহরিয়ার।

বরিশালে পুলিশের মামলায় আটক নেতাসহ সকল শ্রমিক নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সমাবেশ-বরিশাল নিউজ

সমাবেশ শেষে একটি মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ তাদের বাঁধা দেয়।
এদিকে বরিশাল বিএম কলেজ ও পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সমাবেশ ও মিছিলে অংশ নিতে ছাত্রলীগ এবং পুলিশ বাঁধা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন জেলা বাসদের সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী।
বরিশাল নিউজ/রাহাত